ঢাকা ১১:৫০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাপের খামার করে বিপদে পটুয়াখালীর রাজ্জাক

বিশেষ প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় : ০১:৪১:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ জুলাই ২০২৪ ১২ বার পড়া হয়েছে

ঘূর্ণিঝড় রেমালের তাণ্ডবে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে পটুয়াখালীর আব্দুল রাজ্জাকের বাংলাদেশ স্নেকস ভেনম (Bangladesh snakes venom) নামের বিষধর সাপের খামারটি। এই খামারের প্রায় ২৫০টি বিষধর সাপের মৃত্যু হয়েছে। তবে খামারটির সরকারি অনুমোদন না থাকায় সরকারের পক্ষ থেকে কোনো প্রকার সহযোগিতার সুযোগ নেই বলে জানা গে

আব্দুল রাজ্জাক বিশ্বাস ২০০০ সালে পটুয়াখালী জেলার সদর উপজেলার মাদারবুনিয়া ইউনিয়নের নন্দিপাড়া গ্রামে তার নিজ বাড়ির পাশে একটি কিং কোবরা সাপ এবং ২৪টি ডিম নিয়ে গড়ে তোলেন বিষধর সাপের খামার। পরিকল্পনা ছিল সরকারি অনুমোদন পেলে সাপের বিষ সংগ্রহ করে তা বিক্রি করে হবেন দেশ সেরা উদ্যোক্তা। কিন্তু সেই স্বপ্ন এখন অধরাই রয়ে গেল।

বর্তমানে কিং কোবরা, পাইথন, পঙ্খীরাজ, কালকুলিন, সাদা গোমা, কেউটে, দাঁড়াশ, বাসুয়া, পদ্ম গোমা, বিষঝুড়ি ও গোঁড়াসহ বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় দেড় শতাধিক বিষধর সাপ রয়েছে রাজ্জাক বিশ্বাসের খামারে।

নন্দিপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলাম বলেন, রাজ্জাক বিশ্বাস ভাই ২৩ থেকে ২৪ বছর পর্যন্ত সাপের খামার লইয়া কষ্ট করতে আছে। এই বইন্নায় আমাগো এলাকায় কোমর পর্যন্ত পানি উঠছিল, আর এই পানিতে ভাইয়ের কয়েকশ সাপ মারা গেছে। ভাই খুব কষ্ট পাইছে।

একই এলাকার হায়দার বিশ্বাস বলেন, রাজ্জাক ভাই এই সাপের খামার কইরা নিজের আর বাপের টাহা পয়সা সব শেষ করছে। এহন বাপের থুইয়া যাওয়া জমি বন্ধক দিছে। সরকার যদি এই মুহূর্তে তারে একটু সাহায্য করতো তাহলে হয়তো রাজ্জাক বিশ্বাস আবারও ঘুইরা দাঁড়াইতে পারতো।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

সাপের খামার করে বিপদে পটুয়াখালীর রাজ্জাক

আপডেট সময় : ০১:৪১:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ জুলাই ২০২৪

ঘূর্ণিঝড় রেমালের তাণ্ডবে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে পটুয়াখালীর আব্দুল রাজ্জাকের বাংলাদেশ স্নেকস ভেনম (Bangladesh snakes venom) নামের বিষধর সাপের খামারটি। এই খামারের প্রায় ২৫০টি বিষধর সাপের মৃত্যু হয়েছে। তবে খামারটির সরকারি অনুমোদন না থাকায় সরকারের পক্ষ থেকে কোনো প্রকার সহযোগিতার সুযোগ নেই বলে জানা গে

আব্দুল রাজ্জাক বিশ্বাস ২০০০ সালে পটুয়াখালী জেলার সদর উপজেলার মাদারবুনিয়া ইউনিয়নের নন্দিপাড়া গ্রামে তার নিজ বাড়ির পাশে একটি কিং কোবরা সাপ এবং ২৪টি ডিম নিয়ে গড়ে তোলেন বিষধর সাপের খামার। পরিকল্পনা ছিল সরকারি অনুমোদন পেলে সাপের বিষ সংগ্রহ করে তা বিক্রি করে হবেন দেশ সেরা উদ্যোক্তা। কিন্তু সেই স্বপ্ন এখন অধরাই রয়ে গেল।

বর্তমানে কিং কোবরা, পাইথন, পঙ্খীরাজ, কালকুলিন, সাদা গোমা, কেউটে, দাঁড়াশ, বাসুয়া, পদ্ম গোমা, বিষঝুড়ি ও গোঁড়াসহ বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় দেড় শতাধিক বিষধর সাপ রয়েছে রাজ্জাক বিশ্বাসের খামারে।

নন্দিপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলাম বলেন, রাজ্জাক বিশ্বাস ভাই ২৩ থেকে ২৪ বছর পর্যন্ত সাপের খামার লইয়া কষ্ট করতে আছে। এই বইন্নায় আমাগো এলাকায় কোমর পর্যন্ত পানি উঠছিল, আর এই পানিতে ভাইয়ের কয়েকশ সাপ মারা গেছে। ভাই খুব কষ্ট পাইছে।

একই এলাকার হায়দার বিশ্বাস বলেন, রাজ্জাক ভাই এই সাপের খামার কইরা নিজের আর বাপের টাহা পয়সা সব শেষ করছে। এহন বাপের থুইয়া যাওয়া জমি বন্ধক দিছে। সরকার যদি এই মুহূর্তে তারে একটু সাহায্য করতো তাহলে হয়তো রাজ্জাক বিশ্বাস আবারও ঘুইরা দাঁড়াইতে পারতো।